চার্লি চ্যাপলিন জীবনী | Charlie Chaplin Biography in Bengali

Charlie Chaplin Biography in Bengali

চার্লি চ্যাপলিন নির্বাক চলচিত্রের প্রাণভোমরা এবং বিশ্বজয়ী হাসির ও আনন্দের কালপুরুষ একজন অভিনেতা যিনি শুধু মাত্র তার মুখের হাসি আর অঙ্গ ভঙ্গির অভিনয় দিযে বিশ্বের প্রতিটি মানুষকে এক মুহূর্তের জন্য হলেও তাদের মুখে হাসির অবকাশ এনে দিয়াছেন।

Charlie Chaplin যার সম্পূর্ণ নাম স্যার চার্লস স্পেনসার চ্যাপলিন জুনিয়র (Sir Charles Spencer Chaplin, Jr.) তিনি শুধু অভিনেতাই ছিলেন না অনন্ত প্রতিভা সম্পন্ন এই মানুষটি একই সাথে পেশায় ছিলেন অভিনেতা, পরিচালক, সুরকার চিত্রনাট্যকার, প্রযোজক এবং সম্পাদক সফলতার সকল উঁচু শিখড়ে তার ছিলো সমান বিচরণ।

টিভি ও চলচিত্র জগতের শুরুর দিকের এই মহান অভিনেতার জীবনের বিভিন্ন দিক তার জীবনী ও জীবন সংগ্রামের সব ঘটনা যা আমরা সবসময় জানতে পারিনা সেটাই আপনাদের কাছে তুলে ধরবো আজকের এই Charlie Chaplin Biography in Bengali লেখার মাধ্যমে ভালো লাগলে আপনার কাছের মানুষের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Charlie Chaplin Biography in Bengali
Charlie Chaplin Pic credit

Charlie Chaplin Biography in Bengali

নামঃ চার্লি চ্যাপলিন
জন্ম : ১৬ এপ্রিল ১৮৮৯
মৃত্যু: ২৫ ডিসেম্বর ১৯৭৭
জন্মস্থানঃ লন্ডন, ইংল্যান্ড
পরিচিতিঃ অভিনেতা, কমেডিয়ান, পরিচালক, নির্দেশক, এডিটর, স্ক্রিপ্ট লেখক,
পিতাঃ চার্লি চ্যাপলিন সিনিয়র
মাতাঃ হানা চ্যাপলিন
কাজের বছর: ১৮৯৯-১৯৭৬

Charlie Chaplin এর জন্ম হয়েছিলো 16 April 1889 সালে England এর London শহরে। তার বাবা চার্লস স্পেন্সার্স চ্যাপলিন ও মা হেরা চ্যাপলিন সিনিওর মিউজিক হলের জুনিয়র আর্টিস্ট ও সিঙ্গার ছিলেন।

একবার বিখ্যাত পদাৰ্থ বিজ্ঞনী Sir Albert Einstein চার্লি চ্যাপলিন এর সাথে দেখা হলে বলেছিলেন আমি আপনার খুবই ভক্ত হয়ে গেছি আপনি কোনো কথা না বলেও সবাইকে আপনার মনের কথা কতো সহজেই বুঝিয়ে দেন।

জবাবে চার্লি বলেন হ্যা এটি সত্যি, আপনিও আপনার থিওরী সম্পর্কে এত কিছু বলেন সবাই আপনার কতো প্রশংসা করে কিন্তু দুঃখের কথা এইজে তবু তারা আপনার কথা কেউ বুজতে পারে না।

Charlie Chaplin early life

চার্লি চ্যাপলিন এর প্রথম রোজগার ছিলো মাত্র পাঁচ বছর বয়সে। যখন তার মা একদিন টাউন হলে গান গাওয়ার সময় গলায় সমস্যা দেখা দেয় ও আওয়াজ বেরহচ্ছিলনা দর্শকরা তখন বিরক্ত হয়ে চিৎকার চেচামেচি করেন ও চ্যাপলিনের মাকে মারতে উদ্দতে হন।

ছোট চ্যাপলিন তখন মায়ের বিপদ দেখে স্টেজে উঠে আসেন এবং তার মায়ের গাওয়া গান অভিনয়ের সাথে গাইতে শুরু করেন দর্শকদের তার এই আধো আধো কণ্ঠে গাওয়া গান খুব উপভোগ করেন স্টেজে পয়সার বৃষ্টি শুরু হয়।

বাস্তব জীবনের তাদের গরিব হওয়ার কষ্টও যে অন্যকে স্টেজে আনন্দ দেয় ফানি মনে হয় সেটা তিনি হয়তো তখনি এই ঘটনাতেই বুঝে গেয়েছিলেন। তাইতো পরবর্তীতে তার অভিনয়ে মাধ্যমে তিনি গরীবতা, দুঃখ, কষ্ট, একাকীত্ব, বেকারত্বে মতো ঘটনা অভিনয়ের মাধ্যমে তুলে ধরেছেন লোককে আনন্দ দেয়ার জন্য।

কষ্ট ও দারিদ্রতায় পরিপূর্ণ ছিলো চার্লি চ্যাপলিনের শৈশব জীবন মাত্র ছয় বছর বয়সে চার্লির বাবা ও মায়ের মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। তখন চার্লি ও তার ভাইকে নিয়ে চার্লির মাকে অনাথ আশ্রমে আশ্রয় নিতে হয়েছিলো কারণ তখন চার্লির মায়ের কোনো উপার্জন ছিলনা। দরিদ্রতার দুঃচিন্তায় চার্লির মা কিছুদিনের মধ্যেই মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে পাগল হয়ে পাগলা গারদে চলে যায়।

তখন আদালতের নির্দেশে চার্লি ও তার ভাইকে তার বাবার কাছে থাকতে হতো। চার্লির বাবা তখন আবারো বিবাহ করেছিলেম সৎমায়ের সংসারে তাই চার্লি ভাইদের কষ্টের কোন কমতি ছিলনা। এক বছর পরে চার্লির মা ভালো হয়ে ফিরে আসলে তাদের জীবনে আবার প্রাণ ফিরে আসে।

পড়াশোনায় বিশেষ মনোযোগ চার্লির ছিলনা তিনি অভিনয়কেই তার জীবনের লক্ষ হিসেবে মনে স্থান দিয়েছিলেন। দশ বছরের ও কম বয়স থেকে চার্লি স্টেজশো করতেন ও সাথে অন্য কাজ করতেন উপার্জনের উদ্দের্শে। তার লক্ষ যেহেতু ছিল অভিনেতা হওয়ার তাই তিনি নিয়মিত ব্ল্যাক মুর থিয়েটার এ যেতেন অভিনয় দেখতে।

Charlie Chaplin Career

চার্লি একদিন যখন স্টেজশো করছিলেন তখন একজন থিয়েটার পরিচালকের নজরে আসেন। চার্লির অভিনয়ের বিষয়বস্তু ও বাস্তবিক রূপায়ণের দক্ষতা তাকে মুগ্ধ করে। সেই পরিচালকের মাধ্যমে চার্লির পরিচয় বিখ্যাত পরিচালনা ই হ্যামিলটন এর সাথে হয়। ই হ্যামিলটন তাকে শার্লক হোমস এ অভিনয়ের জন্য প্রস্তাব রাখেন। শার্লক হোমস সিরিজ এ অভিনয় করে চার্লি খুব পরিচিতি লাভ করে।

১৯১৩ সালে আমেরিকার নামকরা সিনেমা নির্মাতা প্রতিষ্ঠান New York Motion Pictures চার্লির সাথে চুক্তি করে। তার পরের বছর ১৯১৪ মুক্তিপায় চার্লি চ্যাপলিনের একক সিনেমা Making A Living, দর্শক মহলে তার অভিনয়ের মুগ্ধতায় পরবর্তীতে আরো অনেক সিনেমায় কাজ করেন।

১৯১৪ সালেই চার্লি প্রথম পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন তার প্রথম পরিচালিত ও পরিচালনার সাথে অভিনীত প্রথম সিনেমা হলো Caught in the Rain যা তাকে খুবই জনপ্রিয়তা প্রদান করে এবং তার জীবনের গতিপথ বদলে দেয়। একজন অভিনেতা থেকে বিশ্বের জনপ্রিয় অভিনেতা হয়েযান নিষ্ঠাবান অভিনয়ের জন্য।

বিশ্বের কঠিনতম সয়ম এর মধ্যে প্রবাহিত তার জীবন বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতা ও মানুষের কষ্টকে হাসির মাধ্যমে এমন ভাবে ফুটিয়ে তুলতেন যে তার অভিনয় দেখা পৃথিবীর প্রতিটি মানুষ ক্ষনিকের জন্য তাদের দুঃখ কষ্ট ও উপবাসের কথা ভুলে না হেসে থাকতে পারেনি।

চার্লি চ্যাপলিনের মৃত্যু

1977 সালের অক্টোবর থেকেই চ্যাপলিনের শারীরিক অবস্থার প্রচন্ড অবনতি হয় তাকে বাড়িতেই নিবিড় পরিচর্যার মাধ্যমে রাখা হয়, 25 ডিসেম্বর 1977 চার্লি চ্যাপলিনের মৃত্যু হয় ভোর বেলায় ঘুমের মধ্যে তিনি  হার্ট স্ট্রোক এ আক্রান্ত হয়ে নিজের বাড়িতেই কিংবদন্তি চার্লি  চ্যাপলিনের মৃত্যু হয়।

ইংরেজি ক্যালেন্ডারের সবথেকে বড় উৎসবের দিন বড়দিনে তার মৃত্যু হলেও তাকে কবর দেয়া হয়  ডিসেম্বরের 27 তারিখে, ইচ্ছে অনুযায়ী তার এই অন্তিম অনুষ্ঠানটি তার আত্মীয় পরিজন এবং নিকট বন্ধুদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখা হয়।

Charlie Chaplin Biography in Bengali

চ্যাপলিনের কফিন চুরি – Charlie Chaplin Biography in Bengali

চার্লি চ্যাপলিন নির্বাক চলচ্চিত্রের এবং চলচ্চিত্র অভিনয়ের মাধ্যমে নিজের পরিচিতি এতটাই গড়ে তুলেছিলেন যে তাকে চলচ্চিত্র জগতের প্রথম কিংবদন্তি অভিনেতা হিসেবে অভিহিত করা যায়।

আর তার এই চলচ্চিত্রে অভিনয় এবং অবদান এর মাধ্যমে তিনি প্রচুর সম্পদ অর্জন করেছিলেন মৃত্যুর সময় তার পরিবারের জন্য 100 মিলিয়ন ডলারের অধিক সম্পদ রেখে গিয়েছিলেন বলে জানা যায়।

সম্পদের লোভে তার কফিনের সঙ্গে সুইজারল্যান্ডে ঘটে যায় একটি অভূতপূর্ব ঘটনা এই ঘটনাটি একটি ভৌতিক ঘটনা চাইতে কোনোভাবেই কম নয়।

1978 সালের 1 মার্চ চার্লি চ্যাপলিনের কবর খুঁড়ে তার কবর থেকে কফিনটি চুরি করে নেয়া হয়, এই ঘটনায় সুইজারল্যান্ড সহ সমস্ত দুনিয়া জুড়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়।

কফিন চুরির ঘটনাটির মূল উদ্দেশ্য ছিল চ্যাপলিনের রেখে যাওয়া 100 মিলিয়ন ডলারের সম্পদের থেকে 6 লক্ষ ডলার কফিনের মুক্তিপণ হিসেবে তার স্ত্রী উনা চ্যাপলিনের কাছ থেকে আদায় করে নেওয়া,  এজন্য উনা চ্যাপলিন কে ফোন করে হুমকিও দেয়া হয়

চার্লি চ্যাপলিনের ভক্তদের সকলকে স্বস্তি দিয়ে তার কফিনটির নিরাপদেই উদ্ধার করা হয় 1978 জুলাই মাসে, চ্যাপলিনের কফিনটি নোভিলের কাছে একটি মাঠে সমাহিত অবস্থায় পুলিশ উদ্ধার করে, এই ঘটনা ঘটানোর জন্য রোমান ওয়ারদাস এবং গ্যানচো গ্যানেভ কে আটক করা হয় তারাই চ্যাপলিনের কফিনটি চুরি করেছিল।

Please Note: চার্লি চ্যাপলিন জীবনী Charlie Chaplin Biography in Bengali সম্পর্কে আপনার কাছে যদি আরও তথ্য থাকে, বা আপনি যদি প্রদত্ত তথ্যে কিছু ভুল খুঁজে পান, তাহলে অবিলম্বে মন্তব্য এবং ইমেলে আমাদের লিখুন, আমরা এটি আপডেট করতে থাকব, ধন্যবাদ।

Read More:

Mr Bean Biography in Bengali – মিস্টার বিন জীবনী

Leave a Comment

error: Content is protected !!